logo

মঙ্গলবার, ১২ জুন ২০১৮, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৬ রমজান ১৪৩৯

জি-৭ সম্মেলন শেষে ঘনিষ্ঠ মিত্রদের সমালোচনায় ট্রাম্প
১২ জুন, ২০১৮
অান্তর্জাতিক ডেস্ক
কানাডার কুইবেকে জি-৭ সম্মেলন শেষে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইটে তার ঘনিষ্ঠ মিত্রদের সমালোচনা করতেও কুণ্ঠাবোধ করেননি। সম্মেলন শেষের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ট্রাম্প বলেন, যুক্তরাষ্ট্রকে ন্যাটোর পুরো খরচটাই বহন করতে হয়। আর এটা এর সদস্য দেশসমূহের স্বার্থেই তাদের করতে হচ্ছে। তাই বাণিজ্য নিয়ে তিনি হুটহাট করে সবকিছু করতে পারেন না। একপর্যায়ে তিনি ‘সঠিক বাণিজ্য’ বলতে একে বোকার বাণিজ্যের সঙ্গে তুলনা করেন।

ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, বাণিজ্য ভারসাম্য উভয়পক্ষের না হলে একে বোকার বাণিজ্য বলাই সমীচীন। তাই এখন থেকে যুুক্তরাষ্ট্র বাণিজ্য ইস্যুতে আর কারো সঙ্গে সখ্যতায় গা ভাসিয়ে দেবে না। তিনি বলেন, দুঃখিত- বাণিজ্যে আমরা আর বন্ধু অথবা মিত্রদের আমাদের ওপর থেকে সুবিধা আদায় করতে দেব না। এক্ষেত্রে আমাদের অবশ্যই আমাদের নিজেদের দিকে ফিরে তাকাতে হবে। সেক্ষত্রে তিনি নিজ দেশের কর্মীদের বেশি প্রাধান্য দেওয়ার ওপরই গুরুত্ব প্রদান করেন। ট্রাম্প এর আগে রবিবার বলেছিলেন, আমাদের ৮শ বিলিয়ন ডলার বাণিজ্য ঘাটতি রয়েছে। মার্কিন জনগণ আর এ ঘাটতির বোঝা টানতে চায় না। তাই এ ঘাটতি থেকে উত্তরণে তাদের যা যা করণীয় সে পথেই তারা হাঁটবে। মূলত: সম্মেলনের পুরো সময়টা যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তার মিত্র দেশগুলোর মধ্যে বিরোধ ফুটে উঠে। তিনি অন্যায্য বাণিজ্য চুক্তির জন্য জি-৭ এর দেশসমূহকে দোষারোপ না করে বলেন, এর জন্য তার পূর্বসূরিরাই দায়ী।

এদিকে শুল্ক ও বাণিজ্য নিয়ে মতবিরোধের জি-সেভেন সম্মেলনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে অন্য দেশগুলোর শীর্ষ নেতাদের মুখোমুখি উত্তেজনার বেশকিছু ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেছে। সম্মেলনে অংশ নেওয়া পাঁচটি আলাদা দেশের কর্মকর্তাদের প্রকাশ করা পাঁচটি ছবি নিয়ে চলছে তুলকালাম। কাছাকাছি মুহূর্তের ওই ছবিগুলোতে সম্মেলনকে ঘিরে প্রত্যেকটি দেশের আলাদা আলাদা দৃষ্টিভঙ্গি বোঝা যাচ্ছে বলেও মন্তব্য আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোর। হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র সারাহ স্যান্ডার্সই প্রথম সম্মেলন অভ্যন্তরের উত্তেজনাকর মুহূর্তের একটি ছবি বাইরের দুনিয়ার কাছে উন্মুক্ত করে দেন। ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি ও কানাডার কর্মকর্তারাও কাছাকাছি মুহূর্তের স্থিরচিত্র দিলে জমে ওঠে ছবির লড়াই।

ছবির মার্কিন সংস্করণটিতে ট্রাম্পকে দেখানো হয় পুরো সম্মেলনের মধ্যমণি হিসেবে। এতে দেখা যাচ্ছে- অস্বস্তির বাতাসের মধ্যেও দুই হাত বুকের কাছে জড়ো করে চেয়ারে পিঠ ঠেকিয়ে বসে আছেন আত্মবিশ্বাসী মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তাকে ঘিরে ঝুঁকে থাকা অন্যান্য দেশের নেতা ও কর্মকর্তারা বেশ চিন্তিত। মার্কিন ছবির প্রত্যুত্তরে দশ মিনিট পর একই মুহূর্তের ভিন্ন একটি ছবি প্রকাশ করে ফরাসি প্রেসিডেন্টের দপ্তর। বিপরীতমুখী কোণ থেকে তোলা এ ছবিতে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁকে মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বিতর্ক করতে দেখা যাচ্ছে। অন্য বিশ্বনেতারা স্টাচুর মত দাঁড়িয়ে অনেকটা মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে শুনছেন ম্যাক্রোঁর যুক্তি।

সর্বশেষ খবর

দিগন্ত পেরিয়ে এর আরো খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by