logo

বুধবার, ১৬ মে ২০১৮, ০২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৯ শাবান ১৪৩৯

১৪ লাখ ডাউনলোড বিকাশ অ্যাপ
১৬ মে, ২০১৮
চালুর ২০ দিনের মধ্যে বিকাশ অ্যাপ ডাউনলোড হয়েছে ১৪ লাখের বেশি। স্মার্টফোনে এই অ্যাপ ব্যবহারের মাধ্যমে লেনদেন উৎসাহিত করতে বর্তমানে ব্যক্তি হিসাব থেকে ব্যক্তি হিসাবে টাকা পাঠাতে (সেন্ড মানি) কোনো ধরনের সার্ভিস চার্জ নিচ্ছে না ব্র্যাক ব্যাংকের সহযোগী এই প্রতিষ্ঠানটি। এজেন্টের মাধ্যমে টাকা তোলার (ক্যাশ আউট) ক্ষেত্রেও তুলনামূলক কম হারে সার্ভিস চার্জ দিতে হচ্ছে অ্যাপ ব্যবহারকারীদের। এ ছাড়া আসন্ন রমজানে দেশজুড়ে বেশ কিছু আউটলেট ও ই-কমার্সের কেনাকাটার বিল পরিশোধের ওপর সর্বোচ্চ ২৫ শতাংশ ক্যাশব্যাক অফারের ঘোষণাও দিয়েছে বিকাশ।

গতকাল মঙ্গলবার বিকাশ মোবাইল ফোন অ্যাপের পরিচিতিবিষয়ক এক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে এসব তথ্য তুলে ধরেন বিকাশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) কামাল কাদির। রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বিকাশের প্রধান বাণিজ্য কর্মকর্তা মীর নওবত আলী, করপোরেট যোগাযোগ ও জনসংযোগ প্রধান শামসুদ্দিন হায়দার ডালিম প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে বিকাশের সিইও কামাল কাদির বলেন, “গুগল প্লে স্টোরে আপ করার পর গত ২৫ এপ্রিল রাত থেকে বিকাশ অ্যাপ গ্রাহকদের ব্যবহারের সুবিধা দেওয়া শুরু হয়। এর আগে আমরা বেশ কিছুদিন ধরে নানা ধরনের গবেষণা করে সব শ্রেণি-পেশার মানুষের ব্যবহার উপযোগী করে এই অ্যাপটির নকশা করেছি। লেনদেনের সময় হিসাব নম্বরের ভুলে কাঙ্ক্ষিত গ্রাহককের পরিবর্তে অন্য কোনো গ্রাহকের কাছে যাতে টাকা চলে না যায়, সে জন্য ফোনের ‘কন্টান্ট লিস্ট’ থেকে নম্বর যোগ করার অপশন রাখা হয়েছে এই অ্যাপে। এ ছাড়া কেনাকাটার বিল পরিশোধের সুবিধার জন্য কিউআর কোড স্কান সুবিধা রাখা হয়েছে। এরই মধ্যে দেশব্যাপী ৩০ হাজার মার্চেন্ট আউটলেট কিউআর কোডের আওতায় আনা হয়েছে। নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রতিবার অ্যাপ ব্যবহারের শুরুতে একবার পিন বা গোপন নম্বর দেওয়া এবং প্রতিটি লেনদেনের ক্ষেত্রে আবারও পিন নম্বর দেওয়ার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।”

বিকাশের প্রধান বাণিজ্য কর্মকর্তা মীর নওবত আলী বলেন, ‘ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মে সরাসরি বিকাশের মাধ্যমে কেনাকাটার বিল পরিশোধের জন্য একটি পেমেন্ট গেটওয়ের দরকার। আমরা এটা নিয়েও কাজ করছি। আশা করছি, আগামীতে এই সেবাটিও আমরা দিতে পারব।’

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বর্তমানে বিকাশের গ্রাহক প্রায় তিন কোটি। এজেন্ট সংখ্যা এক লাখ ৮০ হাজার। ফিচার ফোন ব্যবহার করে ইউএসএসডি (আনস্ট্রাকচার সাপ্লিমেন্টারি সার্ভিস ডাটা) পদ্ধতি ব্যবহার করে সেন্ড মানির সার্ভিস চার্জ ০.৫ শতাংশ এবং ক্যাশ আউটের সার্ভিস চার্জ ১.৮৫ শতাংশ। তবে বিকাশ অ্যাপের মাধ্যমে বর্তমানে সেন্ড মানির জন্য কোনো সার্ভিস চার্জ নেই এবং ক্যাশ আউটের ক্ষেত্রে সার্ভিস চার্জ ১.৫০ শতাংশ। অর্থাৎ এক হাজার টাকা ক্যাশ আউট করলে সার্ভিস চার্জ দিতে হবে ১৫ টাকা। পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত এই হার বহাল থাকবে বলে জানিয়েছেন বিকাশের কর্মকর্তারা। এ ছাড়া এয়ারটাইম রিচার্জ বা পেমেন্টের জন্য কোনো সার্ভিস চার্জ নেই। প্রতি মাসে একজন গ্রাহক কী কী ধরনের লেনদেন করেছেন তারও একটি মাসিক বিবরণী দেখার সুযোগ রয়েছে অ্যাপটিতে। এ ছাড়া কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী কোনো গ্রাহকের দৈনিক ও মাসিক লেনদেনের সীমা অনুযায়ী লেনদেনের সুবিধার্থে ‘লিমিট’ নামের একটি সুবিধা রয়েছে এই অ্যাপে। এর ফলে প্রতিটি লেনদেনের আগে গ্রাহক নিজেই দেখে নিতে পারবেন তিনি কত টাকা লেনদেন করতে পারবেন।

সর্বশেষ খবর

অর্থ ও বাণিজ্য এর আরো খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by