logo

বুধবার, ১৬ মে ২০১৮, ০২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৯ শাবান ১৪৩৯

ভোট ডাকাতির নতুন সংস্করণ হয়েছে খুলনায়, বললেন বিএনপির প্রার্থী মঞ্জু
১৬ মে, ২০১৮
খুলনায় নগর বিএনপির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দিচ্ছেন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু। ছবি: সাইফুল ইসলামখুলনায় নগর বিএনপির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দিচ্ছেন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু। ছবি: সাইফুল ইসলাম
খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ১০৫ কেন্দ্রে ভোট-ডাকাতি হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু। তিনি এসব কেন্দ্রের ফল বাতিল করে পুনরায় ভোট নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন। আজ বুধবার বেলা ১১টায় নগরের কে ডি ঘোষ রোডে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মঞ্জু এ দাবি জানান।

খুলনা সিটি করপোরেশনের নির্বাচন হয় গতকাল মঙ্গলবার। নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেক ৬৫ হাজার ৬০০ ভোটের ব্যবধানে হারান বিএনপির মঞ্জুকে। তবে বিএনপির এই প্রার্থী আজ বলেছেন, ব্যাপক অনিয়ম করেই আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে জয়ী করা হয়েছে।

গতকাল নির্বাচনে ভোট দিতে গিয়েই অবশ্য নজরুল ইসলাম মঞ্জু অভিযোগ করেছিলেন, বেশ কিছু কেন্দ্রে তাঁর নির্বাচনী এজেন্টদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি। মঞ্জু আজও একই অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, গতকাল দুপুর ১২টার পর অনেক কেন্দ্রে ভোটারদের যেতে দেওয়া হয়নি। মঞ্জু বলেন, ‘গতকাল যে নির্বাচন হয়েছে, খুলনায় এমন নির্বাচন আগে হয়নি। এখানে ভোট-ডাকাতির নতুন ধারা সংযোজন হয়েছে।’

১০৫ কেন্দ্রে ভোট-ডাকাতির অভিযোগের পাশাপাশি মঞ্জু ৪৫টি কেন্দ্রে ভোটের তদন্ত দাবি করেছেন।

আজকের সংবাদ সম্মেলনে আরও কিছু দাবি তুলে ধরেন মঞ্জু। তিনি গতকালের নির্বাচনে অনিয়মের জন্য দায়ী পুলিশ ও নির্বাচন কর্মকর্তাদের চিহ্নিত করা এবং তাঁদের বিচার দাবি করেন।

নজরুল ইসলাম মঞ্জু দাবি করেন, মেয়র নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকে গতকাল পর্যন্ত বিএনপির অন্তত ২০০ জন নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনি তাঁদের দ্রুত মুক্তি দেওয়ার দাবি করেন।

সর্বশেষ খবর

প্রথম পাতা এর আরো খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by