logo

বৃহস্পতিবার, ১৭ মে ২০১৮, ০৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ৩০ শাবান ১৪৩৯

শিরোনাম

তিন সেতুর কারণে ৩ দিন ধরে ভয়াবহ যানজট
১৭ মে, ২০১৮
নিউজ ডেস্ক
ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে রোববার রাত থেকে শুরু হওয়া যানজট তৃতীয় দিনের মতো বুধবারও স্থায়ী ছিল।

কুমিল্লার দাউদকান্দির গোমতী সেতু, মুন্সীগঞ্জের মেঘনা ও নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুর সেতুর কারণেই ওই এলাকায় ভয়াবহ যানজট দেখা দিয়েছে। এতে স্থবির হয়ে পড়েছে দেশের অর্থনীতির লাইফলাইনখ্যাত এ ফোরলেন সড়ক। আটকে পড়েছে যাত্রী ও পণ্যবাহী যানবাহন।

কুমিল্লা থেকে ঢাকার ২ ঘণ্টার যাতায়াতে সময় যাচ্ছে ৯-১০ ঘণ্টা। তবে হাইওয়ে ও থানা পুলিশের দাবি ঢাকা নগরীতে দিনের বেলায় পণ্যবাহী যানবাহন প্রবেশ নিয়ন্ত্রণ করায় রাতের বেলায় পণ্যবাহী যানবাহনের জটলা বেড়ে গিয়ে শুরু হওয়া যানজট দিনের বেলায়ও বৃদ্ধি পাচ্ছে।

এছাড়াও মেঘনা ও গোমতী সেতুতে টোল আদায়ে ধীরগতির কারণে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে।

হাইওয়ে ও থানা পুলিশসহ সংশ্লিষ্টরা চেষ্টা করেও যানজটের দুর্ভোগ নিরসনে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে পারেনি। গত তিন দিন ধরে মহাসড়কের কাঁচপুর থেকে কুমিল্লার মাধাইয়া পর্যন্ত প্রায় ৫০ থেকে ৬০ কিলোমিটার পর্যন্ত এলাকাজুড়ে ভয়াবহ যানজট সৃষ্টি হয়েছে।

যানজটের কবলে পড়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যাত্রী ও পণ্যবাহী পরিবহন মহাসড়কে আটকে আছে। চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন হাজার হাজার যাত্রী। ঢাকা থেকে কুমিল্লাগামী এশিয়াকনের চালক আবদুল খালেক জানান, এ মহাসড়কে প্রায় ১৯ বছর ধরে বাস চালাচ্ছি, কিন্তু টানা ৩ দিনের মতো এমন দীর্ঘ যানজট আর দেখিনি।

তিনি বলেন, গত রাত সাড়ে ৮টায় ঢাকার কমলাপুর থেকে রওনা করে ভোর সাড়ে ৫টার দিকে কুমিল্লায় পৌঁছেছি। ব্যক্তিগত জিপ নিয়ে কুমিল্লাগামী আওয়ামী লীগ নেতা ব্যারিস্টার সোহরাব খান চৌধুরী মোবাইল ফোনে জানান, বুধবার ভোর ৫টায় ঢাকার বাসা থেকে রওনা দিয়ে মেয়র হানিফ ফ্লাইওভার পেরিয়ে যানজটে আটকা পড়ি, ৩ ঘণ্টায় কাঁচপুর ব্রিজের কাছে এসেও এক ঘণ্টা বসে থেকে গাড়ি ঘুরিয়ে সুলতানা কামাল ব্রিজ পার হয়ে রূপগঞ্জ দিয়ে কাঁচপুর চৌরাস্তায় পৌঁছার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়ে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বাসায় ফিরে যাই।

হাইওয়ে পুলিশের দাউদকান্দি থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ জানান, রমজানকে কেন্দ্র করে পণ্যবাহী অতিরিক্ত যানবাহন বেড়ে যাওয়ায় যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। আমরা মহাসড়কের যানজট নিরসনের লক্ষ্যে সার্বক্ষণিক কাজ করে যাচ্ছি।

শিগগিরই মহাসড়কে যানজট স্বাভাবিক হয়ে আসবে বলে আশা করছি। কুমিল্লার পুলিশ সুপার মো. শাহ আবিদ হোসেন বলেন, কুমিল্লা থেকে ঢাকা যাওয়ার পথে কাঁচপুর, মেঘনা ও দাউদকান্দিসহ তিনটি সেতুতে গাড়ি ধীরগতিতে চলে। সামনের দিকে যদি গাড়ি না যায় তাহলে তো যানজট নিরসন সম্ভব নয়।

ঢাকায় গাড়ি প্রবেশে ধীরগতির কারণে এবং রমজানকে সামনে রেখে মাত্রাতিরিক্ত যানবাহনের চাপে এ যানজট সৃষ্টি হয়েছে। যানজট নিরসনে জেলা ও হাইওয়ে পুলিশ নিরলসভাবে সার্বক্ষণিক কাজ করছে। হাইওয়ে পুলিশের কুমিল্লা অঞ্চলের পুলিশ সুপার নজরুল ইসলাম জানান, ঢাকার দিকে যানবাহনের গতি অনেক কম।

এছাড়া দিনের বেলায় পণ্যবাহী গাড়িগুলো ঢাকায় প্রবেশে নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। তাই মহাসড়কের ফোরলেনে চলাচলকারী সব যানবাহন ওই তিনটি ব্রিজের কাছে গিয়ে থেমে যায়। এতে যানজট কমছে না।

সোনারগাঁয়ে ২০ কিলোমিটার যানজট : ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের মেঘনা সেতুর টোলপ্লাজা থেকে কাঁচপুর সেতু পর্যন্ত দীর্ঘ ২০ কিলোমিটার এলাকায় যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। যানজটে আটকেপড়া যাত্রীদের অভিযোগ, মঙ্গলবার সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের কাঁচপুরে যানজটের পরিস্থিতি পরিদর্শনে এসে বুধবার থেকে যানজট নিরসন হবে বলে যে ঘোষণা দিয়েছেন, তা মিথ্যে হয়ে গেছে। যানজট নিরসনের ঘোষণার পরপরই আরও যানজট বেড়ে গেল। মেঘনা ও দাউদকান্দি সেতুর টোলপ্লাজায় টোল আদায়ে ধীরগতি, ওজন স্কেলের অব্যবস্থাপনা, ট্রাফিক পুলিশের সংখ্যা অপর্যাপ্ত ও ট্রাফিক আইন অমান্য করে উল্টোপথে যানবাহন চলাচল ও মহাসড়কে সংস্কারকাজ চলায় এ যানজটের কারণ বলে জানান চলাচলরত যাত্রী ও পরিবহন শ্রমিকরা।

সর্বশেষ খবর

শেষ পাতা এর আরো খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by