logo

সোমবার ১৭ জুলাই ২০১৭,০২ শ্রাবন ১৪২৪, ২২ শাওয়াল ১৪৩৮

শিরোনাম

চিকুনগুনিয়া মহামারির জন্য দায়ী ব্যক্তিদের শাস্তি দাবি
১৭ জুলাই, ২০১৭
নিজস্ব প্রতিবেদক
চিকুনগুনিয়া নিয়ে সরকার ও সিটি কর্পোরেশন একে অপর কে দোষারোপ করে যাচ্ছেন। এমতাবস্থায় গত ১৪ই জুলাই ২০১৭ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হক সংবাদ সম্মেলন করে চিকুনগুনীয়া মহামারীর দায়ভার নিতে অস্বীকার করেন এবং বিব্রতকর কিছু বক্তব্য জাতিকে মর্মাহত করেছে। গণমাধ্যমে বিষয়টি নিয়ে হৈচৈ শুরু হলে পরের দিন তিনি দুঃখ প্রকাশ করেছেন। আমরা মনে করি সিটি কর্পোরেশন কোন ভাবেই দায় এড়াতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক এসোসিয়েশন’র সভাপতি মহিউদ্দীন আহমেদ।

সোমবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক এসোসিয়েশন “চিকুন গুনিয়া মহামারির জন্য দায়ী ব্যক্তিদের শাস্তি ও আমাদের করণীয়” শীর্ষক এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মহিউদ্দীন আহমেদ আরও বলেন, ২০০৮ সালের আগে এনোফিলিস মশার জীবানু থেকে ম্যালেরিয়া জ্বর হতো। ম্যালেরিয়া সারা দেশে ভয়াবহতা ছড়ালে সারা দেশে মশা মারার জন্য হেলথ ইন্সপেক্টর দ্বারা ডিটিটি পাউডার ছিটানো হয়েছে। ডিটিটি পাউডারে এনড্রিন এর পরিমান বেশি থাকায় জনস্বাস্থ্যের ক্ষতির কথা চিন্তা করে এই কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়। এ কারণে মশা নিধনের কার্যক্রম চলে আবার বন্ধ হয়ে যায়। যার পরিপ্রেক্ষিতে চিকুনগুনীয়া মহামারী আকারে আমাদের মাঝে আবির্ভূত হয়েছে।

তিনি বলেন, চিকুনগুনিয়া ঢাকা শহর সহ সারাদেশে মহামারির ন্যায় ছড়িয়ে পড়ার পরও স্বাস্থ মন্ত্রণালয় ও সিটি কর্পোরেশনের একে অন্যের উপর দায় চাপানো জাতির জন্য লজ্জাকর এক ব্যাপার ।

মহিউদ্দীন আহমেদ বলেন, সিটি কর্পোরেশন এই সকল মশার ক্যামিকেল নিয়ে নতুন করে কোন পরিকল্পনা না থাকায় রেজিষ্ট্যান্স হওয়া ক্যামিকেল ছিটানো লোক দেখানো ও অর্থ অপচয় ছাড়া আর কিছুই না।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, কৃষিবিদ ইন্সটিউটের সাবেক মহাপরিচালক ড. আলাউদ্দিন পিকে, সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক হুমায়ুন কবির হিরু, দুর্নীতি প্রতিরোধ আন্দোলনের সভাপতি হারুন অর রশিদ খান প্রমুখ।

সর্বশেষ খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by