logo

শনিবার ১৪ অক্টোবর ২০১৭, ৩০ আশ্বিন ১৪২৪, ২৩ মহররম ১৪৩৮

শিরোনাম

‘সরকার না চাইলে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না’
১৪ অক্টোবর, ২০১৭
নিজস্ব প্রতিবেদক
সরকার না চাইলে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সবাইকে সোচ্চার হতে হবে। বললেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এম হাফিজ উদ্দিন খান।

শনিবার রাজধানী সিরডাপ মিলনায়তনে দ্য ঢাকা ফোরাম আয়োজিত ‘ইলেকশন অ্যান্ড ডেমোক্রেসি ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক গোল টেবিল আলোচনায় এ সব কথা বলেন তিনি।

এম হাফিজ উদ্দিন খান বলেন, সরকার নির্বাচনের হস্তক্ষেপ যাতে না করতে পারে সে জন্য অন্তর্বর্তীকালীন সরকার লাগবে এবং সেনা মোতায়েন করতে হবে। দেশের রাজনৈতিক দল এবং নেতাকর্মীদের রয়েছে প্রচণ্ড ক্ষমতার লোভ। তারা নিশ্চয়তা চায় নির্বাচনে জেতার।

শামছুল হুদা বলেন, দলগুলোকে নির্বাচন বয়কট পরিহার করতে হবে এবং সব দল অংশ নিতে হবে। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক এ এফ সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী। তিনি বলেন, সরকারের সদিচ্ছা ছাড়া সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না। এ জন্য সবার আগে দরকার প্রধানমন্ত্রীর সদিচ্ছা।

সভায় সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার ড. এ টি এম শামসুল হুদা বলেন, নির্বাচনের আগ মুহূর্তে এসে নির্বাচন কেমন হবে, সরকার কেমন হবে তা নিয়ে সবাই ব্যস্ত। অথচ সারা বছর এ নিয়ে কারো কোনো মাথাব্যথা থাকে না। প্রতিবেশী দেশগুলো অনেকটা সুষ্ঠু নির্বাচন করতে পারছে। তাহলে আমরা কেন ব্যর্থ হবো।

বিএনপিকে ইঙ্গিত করে সাবেক সিইসি বলেন, দয়া করে নির্বাচন বর্জন করবেন না, একটা রেজাল্ট আসবে। আজ ক্ষমতায় যেতে না পারলে কাল বা পরশু তো যেতে পারবেন। গণতন্ত্র একদিন আসবেই। আস্তে আস্তে ধারাবাহিকতা আসবে।

ঢাকা ফোরামের সভাপতি ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর সালেহউদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা মইনুল হোসেন, সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান চৌধুরী, সাবেক মন্ত্রিপরিষদসচিব আলী ইমাম মজুমদার, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী, বিএনপি আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক আসাদুজ্জামান রিপন।

সর্বশেষ খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by