logo

রবিবার ১৫ অক্টোবর ২০১৭, ৩০ আশ্বিন ১৪২৪, ২৪ মহররম ১৪৩৮

শিরোনাম

অভিযোগের সুরাহা না হলে চেয়ারে বসতে পারবেন না প্রধান বিচারপতি
১৫ অক্টোবর, ২০১৭
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে উত্থাপিত ১১ অভিযোগের বিষয়ে অনুসন্ধান হবে। এ বিষয়ে সুরাহা না হলে তিনি চেয়ারে বসতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

অভিযোগের সত্যতা মিললে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি। রোববার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

আইনমন্ত্রী দাবি করেন, প্রধান বিচারপতির ছুটির আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে ছুটি দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি। আর অস্থায়ী বিচারপতি হিসেবে আবদুল ওয়াহহাব মিঞাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। এ নিয়ে কোনো সন্দেহ বা সমস্যা আমরা দেখিনি।

তবে কোনো কোনো রাজনৈতিক দল এসব বিষয় নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টির চেষ্টা করছে। তবে এ নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টির অবকাশ নেই।

আইনমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে দেশে কোনো রাজনৈতিক ইস্যু না থাকায় কোনো কোনো রাজনৈতিক দল প্রধান বিচারপতির ছুটি নিয়ে ইস্যু তৈরির চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেন।

আইনমন্ত্রী আরও বলেন, অস্থায়ী প্রধান বিচারপতি তার কাজের সুবিধার্থে যেকোনো প্রশাসনিক পরিবর্তন আনতে পারবেন। সংবিধান এ বিষয়টিকে সমর্থন করে। তাই এ বিষয়ে প্রধান বিচারপতি যে বক্তব্য দিয়েছেন তা সঠিক নয়।

সংবিধান অনুযায়ী প্রধান বিচারপতির ‘অনুরুপ’ দায়িত্ব ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি পালন করতে পারেন মন্তব্য করে আইনমন্ত্রী বলেন: এ বিষয়ে প্রধান বিচারপতি যে বক্তব্য দিয়েছেন তা আইনসঙ্গত নয়।

সুপ্রিম কোর্টের বিবৃতি প্রসঙ্গে আইনমন্ত্রী বলেন, সুপ্রিম কোর্ট বা অন্য কোন সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান যদি মনে করে কেউ ভুল তথ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠানের সুনাম ক্ষুণ্ণ করছেন, তাহলে প্রতিষ্ঠান বিবৃতি দিয়ে নিজেদের অবস্থান জানাতে পারে।

কেউ আইনের উর্ধ্বে নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে আসা অভিযোগের বিষয়ে দুদক আইন মোতাবেক তদন্ত এবং ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

এর আগে শুক্রবার রাতে লিখিত বিবৃতিতে প্রধান বিচারপতি বলেন: আমি সম্পূর্ণ সুস্থ আছি, কিন্তু ইদানিং একটা রায় নিয়ে রাজনৈতিক মহল, আইনজীবী ও বিশেষভাবে সরকারের মাননীয় কয়েকজন মন্ত্রী আমাকে ব্যক্তিগতভাবে যেভাবে সমালোচনা করেছেন, এতে আমি সত্যিই বিব্রত। আমার দৃঢ় বিশ্বাস সরকারের একটা মহল আমার বিষয়কে ভুল ব্যখ্যা প্রদান করে পরিবেশন করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমার প্রতি অভিমান করেছেন যা অচিরেই দূরীভূত হবে বলে আমার বিশ্বাস।

তিনি বলেন, বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নিয়ে আমি একটু শঙ্কিত বটে। কারণ গতকাল প্রধান বিচারপতির কার্যভার পালনরত দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতিকে উদ্ধৃত করে মাননীয় আইনমন্ত্রী জানিয়েছেন, অচিরেই সুপ্রীম কোর্টের প্রশাসনের পরিবর্তন আনবেন। প্রধান বিচারপতির প্রশাসনে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির এসব করার রেওয়াজ নেই। তিনি শুধুমাত্র রুটিন মাফিক দৈনন্দিন কাজ করবেন। এটিই হয়ে আসছে।

সর্বশেষ খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by