logo

রবিবার ১২ নভেম্বর ২০১৭, ২৮ কার্তিক ১৪২৪, ২২ সফর ১৪৩৯

শিরোনাম

মতপার্থক্য থাকবে, দেশের স্বার্থে এক হতে হবে: খালেদা জিয়া
১২ নভেম্বর, ২০১৭
নিজস্ব প্রতিবেদক
জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, বহুদলীয় গণতন্ত্রের মত ও পথের পার্থক্য থাকবে। কিন্তু দেশের স্বার্থে, জনগণের স্বার্থে এক হতে হবে।

আজ রোববার রাজধানীর সোহাওয়ার্দী উদ্যানে ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ উপলক্ষে আয়োজিত জনসভায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বিএনপি নেত্রী বলেন, ‘আমরা জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়েছি, আসুন। বহুদলীয় গণতন্ত্রে বহু মত ও পথের পার্থক্য থাকবে, কিন্তু দেশের স্বার্থে, জনগণের স্বার্থে এক হতে হবে। এই কাজ করলেই জনগণের কল্যাণ, দেশের উন্নতি করা সম্ভব।’

খালেদা জিয়া বলেন, ‘আজকে ঘরে ঘরে মানুষের কান্না আর আহাজারি। মানুষ আজকে অত্যাচারিত, নির্যাতিত, নিপীড়িত। তাই এদের হাত থেকে মানুষ মুক্তি চায়। মানুষ পরিবর্তন চায়। মানুষ পরিবর্তন চায়। এই পরিবর্তন আমরা বলি আসতে হবে নির্বাচনের মধ্য দিয়ে, ভোটের মধ্য দিয়ে আসতে হবে। এই জন্য মানুষের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দিতে হবে।’

বিএনপির চেয়ারপারসন বলেন, ‘ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য প্রয়োজন একটা নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন।’

খালেদা জিয়া বলেন, ‘সাত নভেম্বরকে আওয়ামী লীগ ভয় পায়। আর কি ভয় পায় জানেন? এই জনগণকে আওয়ামী লীগ ভয় পায়, আপনাদের ভয় পায়। এজন্যই তারা জনসভা করতে দেয় না। বিভিন্ন জায়গায় গেলে বাধা সৃষ্টি করে। আমাদের ছেলেপেলেদের প্রতিনিয়ত হয়রানি করছে। মিথ্যে মামলা দিয়ে জেলখানায় বন্দি করছে।’ তিনি বলেন, ‘জনসভার অনুমতি তারা দিয়েছে। কিন্তু জনসভা যাতে সফল না হয়, জনগণ যাতে আসতে না পারে সেজন্য কত রকমের বাধা সৃষ্টি করা হয়েছে।’

প্রতিবছর ৭ নভেম্বর দিবসটি পালন করে বিএনপি।

খালেদা জিয়া বলেন, ৭ নভেম্বর আমাদের জনসভা করতে দেয়নি। আজ অনুমতি দিয়েছে। কিন্তু জনসভা যাতে না হয়, জনগণ যাতে না আসতে পারে সেজন্য বাধা সৃষ্টি করা হয়েছে। হোটেলগুলোতে তল্লাশি চালানো হয়েছে। গণপরিবহন বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, শুধু কী তাই, আমিও যাতে আপনাদের সামনে পৌঁছাতে না পারি সে ব্যবস্থাও করেছে। আমার বাড়ির সামনে থেকে গুলশান পর্যন্ত বাস দিয়ে রাস্তা আটকে দেয়া হয়েছে। বাসের ড্রাইভার নেই।

বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, হাসিনার অধীনে কোনো নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে না। সামান্য স্থানীয় নির্বাচন যারা চুরি করে জিততে চায়, তাদের অধীনে কোনো নির্বাচন হতে পারে না। তারা মানুষকে ভয় পায়।

ইভিএম দিয়ে নির্বাচন হবে না। নির্বাচনে সেনাবাহিনী নামাতে হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

সর্বশেষ খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by