logo

শুক্রবার ১৭ নভেম্বর ২০১৭, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২৭ সফর ১৪৩৯

শিরোনাম

আমি ধাপ্পাবাজির রাজনীতি করি না: আইনমন্ত্রী
১৭ নভেম্বর, ২০১৭
আখাউড়া প্রতিনিধি
আগামী সংসদ নির্বাচনে আবারও প্রার্থিতা প্রকাশ করে জনগণের কাছে নিজের জন্য নৌকা মার্কায় ভোট চেয়েছেন আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক।

মন্ত্রী তার নির্বাচনী এলাকাবাসীর উদ্দেশে বলেন, আমি ধাপ্পাবাজির রাজনীতি করি না। আমি এলাকায় কী কাজ করেছি আর কী কাজ করব তার হিসাব করে নয়।

তিনি বলেন, আপনারা যদি আমাকে সত্যি সত্যি ভালোবাসেন তা হলে আমি নৌকায় ভোট চাই। আমি আপনাদের অনেক বেশি ভালোবাসি। আমার বিশ্বাস, আপনারা আমাকে এমনিতেই ভোট দেবেন।

শুক্রবার সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার দক্ষিণ ইউনিয়নের কালীনগর ও আখাউড়া পৌর শহরের তারাগন গ্রামের বিদ্যুৎ সংযোগ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইনমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে আনিসুল হক বলেন, বাংলাদেশে অনেক ষড়যন্ত্র অব্যাহত আছে। উনি (খালেদা জিয়া) নাকি ৯ বছর ধরে ন্যায়বিচার পান না।

উপস্থিত জনগণের কাছে প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে মন্ত্রী বলেন, উনার বিরুদ্ধে মামলা করেছে উনার বানানো সাবেক সেনাবাহিনীর প্রধান মইন ইউ আহমেদ। সেই মামলার বিচারকাজ শুরু হয়েছে ২০১১ সালে।

‘উনি উনার মামলায় চ্যালেঞ্জ করে একবার হাইকোর্টে যান। আবার আপিল বিভাগে যান। তিনি হাইকোর্টে পরাজিত হন। আবার তিনি আপিল বিভাগে গিয়ে সেখানেও হারেন। তিনি আবার ফিরে আসেন। এই করতে করতে পাঁচ বছর লেগেছে।’

মন্ত্রী বলেন, কোর্টে যদি আপনার অথবা আমার কোনো ওয়ারেন্ট থাকে, আর কোর্টে হাজির না হই, তা হলে আমাদের দড়ি আর হ্যান্ডকাফ লাগিয়ে বেঁধে নিয়ে যাবে- এটিই স্বাভাবিক।

‘কিন্তু উনি (খালেদা জিয়া) বিচার বিভাগকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে বিদেশ ভ্রমণে চলে যান, কোনো ভ্রূক্ষেপও করেন না। অথচ উনি বলেন- দেশে ন্যায়বিচার পান না। মিথ্যাচারের আর কত রকম প্রবঞ্চনা উনি করতে পারেন?’

২০১৯ সালের জাতীয় নির্বাচনে তাকে নির্বাচিত করে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে তিনি সবাইকে আহ্বান জানান।

আনিসুল হক বলেন, আগামী পাঁচ বছর যদি আপনারা আমাকে আবার নির্বাচিত করেন, তা হলে আখাউড়া-কসবা এলাকার উন্নয়নের আর কিছু বাকি থাকবে না।
আইনমন্ত্রী আখাউড়ার কালীনগর, কাইজবাড়ি ও তারাগন গ্রামের ১ হাজার ২৪০ পরিবারে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগের উদ্বোধন করেন।

এ সময় তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর ২০১৩ সাল পর্যন্ত আখাউড়া উপজেলায় সাড়ে ১৬ হাজার পরিবারে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হয়েছে। অথচ ২০১৪ সালের পর এ পর্যন্ত তিনি আখাউড়া উপজেলায় ২০ হাজার ৬০০ পরিবারে নতুন করে বিদ্যুৎসংযোগ স্থাপন করেছেন।

পরে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উদ্যোগে আয়োজিত আখাউড়া উপজেলা চত্বরে তিন দিনব্যাপী কৃষি মেলার উদ্বোধন করেন মন্ত্রী।

এ সময় তিনি বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত উপজেলার ৪৫০ কৃষকের মধ্যে কৃষি বীজ ও সার বিতরণ করেন।

অনুষ্ঠানে আখাউড়া দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. জালাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার আবদুল ওয়াহিদ, আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ শামসুজ্জামান, উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক অধ্যাপক জয়নাল আবেদিন, আবুল কাশেম ভূঁইয়া, সেলিম ভূঁইয়া, অ্যাডভোকেট আমিনুল ইসলাম সাজী, ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ তানজীল শাহ তচ্ছন প্রমুখ।

সর্বশেষ খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by