logo

রবিবার ১৪ জানুয়ারি ২০১৮, ১ মাঘ ১৪২৪, ২৬ রবিউস সানি ১৪৩৯

বিরোধীদের হাতে অস্ত্র তুলে দিয়েছে সিপিডি
১৪ জানুয়ারি, ২০১৮
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণের একদিন পর সিপিডির সংবাদ সম্মেলন উদ্দেশ্যমূলক বলে অভিযোগ করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

রোববার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি অভিযোগ করেন।

বাংলাদেশের উন্নয়নে স্বাধীন পর্যালোচনা শিরোনামে বাংলাদেশের অর্থনীতি ২০১৮-২০১৯ প্রথম অন্তর্বর্তী পর্যালোচনা বিষয়ে গতকাল শনিবার সংবাদ সম্মেলন করে সিপিডি।

ওই সংবাদ সম্মেলনে সিপিডির সম্মানীয় ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য বলেন, ২০১৭ সালের শুরুটা যতটা প্রতিশ্রুতিশীলভাবে শুরু হয়েছিল, সেই ধরনের উদ্যোম বা ইতিবাচক পরিস্থিতি শেষ করতে পারেনি। এর প্রধান কারণ হলো বাংলাদেশ বিগত দশক ধরে একটি শোভন প্রবৃদ্ধির হার ধরে রাখতে পেরেছে। কিন্তু এই শোভন প্রবৃদ্ধির হারের নিচে অন্ধকার রয়েছে।

তিনি বলেন, ২০১৭ সালটা ব্যাংক কেলেঙ্কারির বছর হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে। সার্বিকভাবে ২০১৭ সালে অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা চাপের মধ্যে ছিল। ব্যাংক অস্থিতিশীলতা নিরসনে কোনো পদক্ষেপ ২০১৮ তে হবে সেটার কোনো লক্ষণ আমরা দেখছি না। আমরা দেখছি অপরিশোধিত ঋণ বেড়ে গেছে। করের টাকা দিয়ে পুনরায় তফসিলি করা হয়েছে।

“বিভিন্ন ব্যক্তি খাতের ব্যাংকে প্রশাসনিক ব্যবস্থার মাধ্যমে মালিকানা বদল হয়েছে। নতুন যে ব্যক্তি খাতের ব্যাংকগুলো সম্পূর্ণ রাজনৈতিক বিবেচনায় দেয়া হয়েছে সেগুলো কার্যকর হতে পারেনি। আমরা দেখছি ব্যক্তি খাতের ব্যাংকের মাধ্যমে টাকা পাচারের ঘটনাও ঘটছে। ব্যাংকিং খাত দেখলে পরিষ্কার বোঝা যায় সরকার এখন সংস্কারে আগ্রহী নয়।”

তিনি বলেন, আমরা দেখতে পাচ্ছি উল্টো একই পরিবারের দুই জনের পরিবর্তে চারজনকে ব্যাংকের পরিচালক নিয়োগের সুযোগ দিয়েছে সরকার। এতে ব্যাংক হয়ে উঠছে পরিবারকেন্দ্রিক।

এসময় অর্থমন্ত্রণালয়ের কয়েকটি দুর্বলতার কথাও উল্লেখ করেন এ অর্থনীতিবিদ।

সিপিডির বক্তব্যের একদিন পর বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, তাদের সঙ্গে বিএনপির বক্তব্যের কোনো তফাত নেই। সিপিডির বক্তব্য আর বিএনপির বক্তব্য একই।

তিনি বলেন, এর মাধ্যমে সিপিডি নিজেদের বক্তব্যের মাধ্যমে নির্বাচনী বছরে বিরোধীদের হাতে অস্ত্র তুলে দিয়েছে।

সর্বশেষ খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by