logo

মঙ্গলবার ২৩ জানুয়ারি ২০১৮, ১০ মাঘ ১৪২৪, ৬ জমাদিউল-আউয়াল ১৪৩৯

শিরোনাম

বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তে নিরাপত্তা উন্নত হচ্ছে
২৩ জানুয়ারি, ২০১৮
নিজস্ব প্রতিবেদক
বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্ত নিরাপত্তা উন্নত করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এতে সীমান্ত নিরাপত্তা জোরদারসহ মিয়ানমার হতে অবৈধ অনুপ্রবেশ রোধ হবে। পাশাপাশি ওই এলাকায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ ও পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়ন করা হবে। এতে ব্যয় হবে ১৪১ কোটি ৬৫ লাখ টাকা।

মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় এ সংক্রান্ত একটি প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এতে সভাপতিত্ব করেন। আজকের সভায় মোট ১৪ প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়।

একনেক সভা শেষে প্রকল্পগুলো নিয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের আওতায় বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড ২০২০ সালের জুন মাসের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে। প্রকল্প এলাকা হচ্ছে চট্টগ্রাম বিভাগের কক্সবাজার জেলার টেকনাফ ও উখিয়া উপজেলা।

প্রকল্পটি সম্পর্কে বলা হয়, কক্সবাজারের উখিয়া এবং টেকনাফ উপজেলার পূর্ব দিকে মিয়ানমার অবস্থিত। টেকনাফ-উখিয়া ও মিয়ানমারের মাঝ বরাবর নাফ নদীটি প্রবাহিত। নাফ নদীর ডান তীর বরাবর বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক নির্মিত পোল্ডার নং-৬৭/এ, ৬৭, ৬৭/বি এবং ৬৮ এর আওতায় ৪৭ দশমিক ৬০ কিলোমিটার বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ এবং ৪৬টি পানি নিষ্কাশন অবকাঠামো রয়েছে। যার মূল উদ্দেশ্য হলো প্রকল্প এলাকায় নাফ নদীর লোনা পানির প্রবেশ রোধসহ বন্যা ও উচ্চ জোয়ার হতে প্রকল্প এলাকায় জানমাল রক্ষা করা। কিন্তু প্রাকৃতিক দুর্যোগে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ও পানি নিষ্কাশন অবকাঠামোসমূহ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এতে আরো বলা হয়, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ ঠেকাতেও উক্ত বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ব্যবহার করে আসছে। কিন্তু বাঁধসমূহ ক্ষতিগ্রস্ত অবস্থায় থাকায় বর্তমানে মোটরযান দিয়ে বিজিবি সদস্যদের সীমান্ত টহল কাজ করা কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। তাই প্রকল্পটি হাতে নেয়া হয়েছে।

প্রকল্পটির আওতায় ৬০ দশমিক ৬০ কিলোমিটার বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ পুননির্মাণ, পানি নিষ্কাশন অবকাঠামো নির্মাণ-৮টি; পানি নিষ্কাশন অবকাঠামো মেরামত হবে ৪৬টি।

সর্বশেষ খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by