logo

বৃহস্পতিবার, ১৫ মার্চ ২০১৮, ১ চৈত্র ১৪২৪, ২৬ জমাদিউস সানি ১৪৩৯

তদন্তে সময় লাগতে পারে ১ বছর: সিভিল এভিয়েশন চেয়ারম্যান
১৫ মার্চ, ২০১৮
নিউজ ডেস্ক
নেপালে বিমান দুর্ঘটনার তদন্ত শেষ করতে কমপক্ষে এক বছর লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন সিভিল এভিয়েশন চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এম নাইম হাসান।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব তথ্য জানান।

ভাইস মার্শাল নাইম হাসান বলেন, ‘প্লেন দুর্ঘটনার ঘটনা তদন্তে দীর্ঘ সময় লাগতে পারে। দুর্ঘটনার পর থেকে তদন্ত শুরু হয়েছে। আইকাও এর (ইন্টারন্যাশনাল সিভিল এভিয়েশন অর্গানাইজেশন) নিয়ম অনুযায়ী ৩৬৫ দিনের মধ্যে তদন্তের নিয়ম রয়েছে। তবে প্রয়োজনে আরও বেশি সময় নেওয়া যেতে পেরে।’

সিভিল এভিয়েশনের চেয়ারম্যান বলেন, ‘সিভিল এভিয়েশনের পাঠানো টিম থেকে জানানো হয়েছে— বিএস ২১১ উড়োজাহাজ বিধ্বস্তের ঘটনায় নিহতদের মধ্যে ১৯ জন মরদেহের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। চার পাঁচ দিনের মধ্যে বাকিগুলোর হয়ে যাবে আশা করছি। এর পর থেকে আহতদের সঙ্গে একটা দুইটা করে মরদেহ আসতে থাকবে। মরদেহ দ্রুত আনার জন্য আমার কাজ করছি।’

তদন্তের বিষয়ে নাইম হাসান বলেন, ‘তদন্ত নেপাল করবে। আমাদের টিম তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখবে। এই প্রক্রিয়া চলমান থাকবে।’

এ সময় সিভিল এভিয়েশনের সদস্য (পরিকল্পনা ও পরিচালনা) মোস্তাফিজুর রহমান ও পরিচালক ( ফ্লাইট সেফটি) চৌধুরী জিয়াউল কবির উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত মঙ্গলবার এয়ার ভাইস মার্শাল এম নাইম হাসান বলেছিলেন, ‘ইউএস-বাংলার বিমান বিধ্বস্তের ঘটনা তদন্ত কবে নাগাদ শেষ হবে, তা নির্দিষ্ট করা বলা মুশকিল।’

সোমবার কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলার একটি উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়ে ৭১ আরোহীর মধ্যে ৫১ জনের মৃত্যু হয়। তাদের মধ্যে চার ক্রুসহ ২৬ জন ছিলেন বাংলাদেশি।

দুর্ঘটনায় আহত ১০ জন বাংলাদেশি বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তাদের মধ্যে সাতজনকে কাঠমান্ডু ছাড়ার অনাপত্তিপত্র দেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে তাদের একজনকে সিঙ্গাপুরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। অন্য ছয়জনও যে কোনো সময় কাঠমান্ডু ছাড়তে পারবেন। তবে বাকি তিন বাংলাদেশিকে আগামীকাল শুক্রবার ছাড়পত্র দেওয়া হবে বলে জানা গেছে।

সর্বশেষ খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by