logo

রোববার, ১৯ আগস্ট ২০১৮, ৪ ভাদ্র ১৪২৫, ০৭ জিলহজ ১৪৩৯

অশুভ শক্তি এখনও সক্রিয়, ওরা ক্ষমতায় এলে অর্জন ধ্বংস হবে
আমলানির্ভরতা দূর করে রাজনীতিবিদদের হাতে কর্তৃত্ব ফেরাতে হবে: আনোয়ার হোসেন মঞ্জু
১৯ আগস্ট, ২০১৮
নিউজ ডেস্ক
আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, ১৪ দল সমন্বয়ক ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, একাদশ সংসদ নির্বাচন সামনে, সেজন্য আগামী চারটি মাস অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই সময়টাতে সবাইকে সতর্ক ও সজাগ থাকতে হবে। কারণ ’৭১ ও ’৭৫ এর অশুভ শক্তি এখনও সক্রিয়। এই অশুভ শক্তি ক্ষমতায় এলে গত দশ বছরে অর্জিত আমাদের সাফল্যগুলো ধ্বংস হয়ে যাবে। অশুভ শক্তিকে পরাজিত করতে ১৪ দলসহ মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। কেননা ওদেরও শেষ সময়, আমাদেরও চূড়ান্ত সময়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ১৪ দল শরিক জাতীয় পার্টি-জেপি’র উদ্যোগে গতকাল শনিবার রাজধানীর কাকরাইলে ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ-আইডিইবি মিলনায়তনে আয়োজিত স্মৃতিচারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে। আমরা এর বাইরে যাব না। যাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না। বিএনপিকে বলবো— ভয় পান কেন। আমরা নির্বাচনের মাঠে খেলে জিততে চাই। বাংলাদেশের মানুষ শান্তিতে আছে, দেশ স্থিতিশীল। জনগণ নিশ্চয়ই এই শান্তি ও স্থিতিশীলতা নষ্ট হোক তা চায় না। জনগণ আবার দুর্নীতির হাওয়া ভবন বানাতে চায় না। তিনি আরও বলেন, নির্বাচনকালীন সরকারের বিষয়টি মীমাংসিত। অনির্বাচিত তত্ত্বাবধায়ক ব্যবস্থায় আমার কেন যাব? জেনেশুনে ওই ফাঁদে আমরা আর পা দিতে পারি না।

‘আমলানির্ভরতা দূর করে রাজনীতিবিদদের হাতে কর্তৃত্ব ফেরাতে হবে’

স্মৃতিচারণ সভায় সভাপতিত্বকারী, জাতীয় পার্টি-জেপি চেয়ারম্যান ও পানিসম্পদ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বলেন, রাষ্ট্র পরিচালনার ক্ষেত্রে রাজনীতিবিদরা যদি রাজনীতিনির্ভর না হয়ে আমলানির্ভর হন তাহলে সেখানে ভুল বোঝাবুঝির অবকাশ থাকে। জনতার রায় নিয়ে রাজনীতিবিদরা রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব নেন; জেল-জুলুম-অত্যাচারের শিকারও হতে হয় তাদেরই; অথচ কর্তৃত্ব থাকবে আমলাদের ওপর— এটা রাজনীতিবিরুদ্ধ। এই মৌলিক চিন্তা-ভাবনার বিষয়টি স্পষ্ট হওয়া দরকার।

জেপি চেয়ারম্যান বলেন, আমাদের দেশ বারেবারে স্বাধীন হয়েছে। প্রায় সকল ক্ষেত্রে এখনও রাষ্ট্র পরিচালিত হচ্ছে সেই ঔপনিবেশিক আমলের আইন-কানুন ও বিধি-বিধান দ্বারা। আমরা রাজনীতিবিদরাই আবার এগুলোর অনুমোদন দিয়ে থাকি। এটা রাজনীতিবিরুদ্ধ ও আমলাতান্ত্রিকতা। সে কারণে সংগ্রাম ছিল, এখনও আছে। আর সম্ভবত এই উপলব্ধি থেকেই একজন বই লিখেছেন ‘অসমাপ্ত বিপ্লব’। সেজন্য বলি, রাজনীতিবিদদের হাতে যেদিন এই কর্তৃত্ব রক্ষিত হবে— সেইদিনই বিপ্লব সমাপ্ত হবে।

অন্যরা যা বললেন

সভায় ১৪ দল শরিক সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া বলেন, আগামী নির্বাচনই আমাদের জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে নৌকায় ভোট দিয়ে শেখ হাসিনাকে আবারও ক্ষমতায় আনার বিকল্প নেই। জেপি’র সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক শিক্ষামন্ত্রী শেখ শহীদুল ইসলাম বলেন, আগামী নির্বাচন শুধু এমপি-মন্ত্রী হওয়ার জন্য নয়। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন, স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব নিরাপদ রাখতে এবং উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে এ নির্বাচন একটা গণভোট। ১৪ দলের আরেক শরিক জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার বলেছেন, ’৭৫ এর অপশক্তি এখনও নিশ্চিহ্ন হয়নি। আগামীতে তাদের চূড়ান্তভাবে পরাজিত করতে ১৪ দলের ঐক্য দৃঢ় করতে হবে।

স্মৃতিচারণ সভায় জেপি’র প্রেসিডিয়াম সদস্য এএইচ সালাহউদ্দিন মাহমুদ বলেন, আগামী নির্বাচনেও ১৪ দলের বিজয়ের কোনো বিকল্প নেই। দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য এজাজ আহমেদ মুক্তা বলেন, অপশক্তি আবার আঘাত হানতে পারে, সতর্ক থাকতে হবে। আরেক প্রেসিডিয়াম সদস্য রুহুল আমিন এমপি বলেন, আগামীতেও শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী করতে হবে। সভার সঞ্চালক ও জেপি’র নির্বাহী সম্পাদক সাদেক সিদ্দিকী বলেন, আগস্ট সবসময়ই আমাদের জীবনে দুর্যোগ বয়ে এনেছে। ষড়যন্ত্র সর্বকালে ছিল, এখনও আছে। ষড়যন্ত্রকারীদের পরাস্ত করতে হলে ১৪ দলকে কার্যকরভাবে শক্তিশালী করতে হবে। সভায় ১৪ দল নেতাদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন গণতান্ত্রিক পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন, গণআজাদী লীগের এস কে সিকদার, বাসদ আহ্বায়ক রেজাউর রশীদ খান, ন্যাপ-মোজাফ্ফর এর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন ও কমিউনিস্ট কেন্দ্রের অসিত্ কুমার। জেপি’র প্রেসিডিয়াম সদস্য নাজমুন নাহার বেবী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান খলিল, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও দপ্তর সম্পাদক এম. সালাহউদ্দিন আহমেদ, সহ-সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট এনামুল ইসলাম রুবেল, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল খায়ের সিদ্দিকী আবু, যুব সংহতির সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম ও যুগ্ম দপ্তর সম্পাদক জীবন কৃষ্ণ বৈরাগী প্রমুখ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষ খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by