logo

রোববার, ০২ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

শিক্ষামন্ত্রীর মনোনয়ন বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ
০২ ডিসেম্বর, ২০১৮
এমদাদুর রহমান চৌধুরী জিয়া
এমদাদুর রহমান চৌধুরী জিয়া, সিলেট
শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের মনোনয়ন বাতিল চেয়ে সিলেটের বিয়ানীবাজারে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের একাংশের নেতাকর্মীরা। বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়াম্যান আবুল কাশেম পল্লবের নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত মিছিলটি পৌর শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে দক্ষিণবাজারস্থ জনতা মার্কেটের সামনে সভাস্থলে গিয়ে শেষে হয়।

সভা শুরুর পূর্বে থানা পুলিশ বাধা দিলে পুলিশের সাথে নেতাকর্মীদের বাকবিতণ্ডা ও হাতাহাতি শুরু হয়। এক পর্যায় বিক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীরা পুলিশের উপর চেয়ার ছুঁড়ে মারে। এতে পুলিশ লাঠিচার্জ করে তাদেরকে সভাস্থল থেকে সরিয়ে দেয়। ফলে পূর্ব নির্ধারিত সমাবেশ পণ্ড হয়ে যায়, তবে বিক্ষোভকারীরা পুলিশী বাধা উপেক্ষা করে সংক্ষিপ্ত পথসভা করে। পুলিশের লাঠিচার্জ ও চেয়ার ছুঁড়ে মারার ঘটনায় ৫ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

রবিবার বেলা আড়াইটায় বিয়ানীবাজার পৌরশহরের দক্ষিণবাজারে এ ঘটনা ঘটে।আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-৬ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী স্থানীয় এমপি শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এর মনোনয়ন বাতিলে দাবিতে বিয়ানীবাজার আওয়ামী লীগের পল্লব গ্রুপের পক্ষ থেকে ২ডিসেম্বর রবিবার শহরে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়।

পূর্ব নির্ধারীত কর্মসূচী উপলক্ষে বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের ব্যানারে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা মিছিলে যোগ দেন। বেলা সোয়া ২টায় শহরের দক্ষিণবাজার থেকে হাজারো নেতাকর্মীর অংশগ্রহণে মিছিলটি শুরু হয়ে কলেজ রোড দিয়ে পোস্ট অফিস রোড ও উত্তর বাজার ঘুরে পুনঃরায় দক্ষিণবাজারস্থ সমাবেশ স্থলে এসে সমাপ্ত হয়। এ সময় বিয়ানীবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ অবনী শংকর কর এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ সমাবেশে বাধা দেয়।

পথসভায় বক্তব্যদান কালে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আবুল কাশেম পল্লব ও লাউতা ইউপি চেয়ারম্যান গৌছ উদ্দিন দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসনিার কাছে দাবি জানিয়ে বলেন, ‘এ আসনে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে হলে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের মনোনয়ন বাতিল করে অন্য যে কাউকে মনোনয়ন দিতে হবে। অন্যথায় এখানে নৌকার ভরাডুবি ঘটবে।’ বক্তারা বলেন, ‘আমাদের শান্তি পূর্ণ মিছিল ও সমাবেশে পুলিশ বাধা দিয়েছে। আমাদের নেতাকর্মীদের মারধর করে মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

বিয়ানীবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ অবনী শংকর কর বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা না মেনে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ পৌরশহরে মিছিল বের। মিছিল করতে আমরা বারণ করেছি, বাধা দিয়েছি। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। তেমন কোন ঘটনা ঘটেনি, পুলিশের কেউ আহতও হয়নি।’

সর্বশেষ খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by