logo

বৃহস্পতিবার, ১৪ জুন ২০১৮, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৮ রমজান ১৪৩৯

শিশুদের পোশাকে রঙে নকশায় কারুকাজ
১৪ জুন, ২০১৮
অনলাইন ডেস্ক
ঈদের আনন্দ সবার জন্য। তবে শিশুদের জন্য তা আরো বেশি উপভোগ্য। বিশেষ করে নতুন পোশাক ঈদের আনন্দকে আরো বাড়িয়ে দেয় কয়েকগুণ। তাই অভিভাবকরাও কার্পণ্য করেন না পছন্দের পোশাক কিনে দিতে। সবচেয়ে আকর্ষণীয় সুন্দর পোশাকটি কেনা হয় পরিবারের ছোটদের জন্য। আর পোশাক নিয়ে সে কী উচ্ছ্বাস তাদের ! ঈদ বাজারে এসেছে রকমারি ডিজাইনের নানা পোশাক। শিশুদের পোশাকের নকশাও নজরকাড়া। ভিনদেশি পোশাক ঈদ বাজারে থাকলেও দেশিয় পোশাকের আধিপত্যই বেশি। ঈদ ঘনিয়ে আসায় রাজধানীর বিপণি বিতান ও বেবি শপগুলোতে ছোটদের পোশাক বিক্রির ধুম পড়েছে।

নগরের ফ্যাশন হাউস ঘুরে দেখা গেছে, সবারই পছন্দ আরামদায়ক কাপড়ের পোশাক। গ্রীষ্মকালীন আবহাওয়ার সাথে মিল রেখে তৈরি করা হয়েছে পোশাক। তবে পোশাকে ব্যবহার করা হয়েছে উজ্জ্বল রঙ। মেয়ে শিশুদের জন্য হাল আমলের রকমারি সুতির টু-পিস, থ্রি-পিস, স্কার্ট-টপ, বেবি টপস স্কার্ট, ডিভাইডার, জিনস প্যান্ট, ফতুয়া, পাঞ্জাবি ও গেঞ্জি সেট। আর ছেলেদের জন্য রয়েছে জিনস প্যান্ট, নরমাল প্যান্ট, থ্রি কোয়ার্টার সেট, পাঞ্জাবি, ফতুয়া, বাবা সেট, গেঞ্জি, শার্ট ও গেঞ্জি সেট। পোশাকের প্যাটার্নে রয়েছে ওয়েস্টার্ন ধাঁচ।

মিরপুরের বুটিক পল্লী, বসুন্ধরা সিটি, যমুনা ফিউচার পার্ক, ধানমন্ডির রাপা প্লাজা, জেনেটিক প্লাজা, অর্কিড প্লাজা, মেট্রো শপিং মল, আড়ং, বেবি শপ, এলিফ্যান্ট রোড, নিউমার্কেট, চাঁদনী চক, গাউছিয়া মার্কেট, ইস্টার্ন প্লাজা, ইস্টার্ন মল্লিকা, মৌচাক মার্কেট, আজিজ সুপার মার্কেট, মাসকাট প্লাজা, বনানী, গুলশান ও উত্তরার অভিজাত ফ্যাশন হাউসগুলোর প্রতিটি দোকানে বড়দের পাশাপাশি হাতের কাজ করা ছোটদের বাহারি রঙ ও ডিজাইনের পোশাক সাজিয়ে রাখা হয়েছে। এছাড়া নিউমার্কেট, পল্টন, মিরপুর, গুলিস্তানসহ সব বাণিজ্যিক এলাকা সংলগ্ন ফুটপাতেও দোকানিরা সাজিয়ে বসেছেন বাচ্চাদের পোশাকের পসরা।

বিক্রেতারা জানিয়েছেন, ঈদুল ফিতর যতই ঘনিয়ে আসছে, বিক্রি ততই বাড়ছে। কয়েকটি দোকান ঘুরে দেখা গেছে. পার্টি ফ্রকের দাম দেড় হাজার থেকে ৫ হাজার টাকার মধ্যে, ওয়েস্টার্ন ড্রেস দাম ১ হাজার দুইশত থেকে ৪ হাজার, লেহেঙ্গার দাম সাড়ে ৩ হাজার থেকে সাড়ে ৮ হাজার টাকা এবং ইন্ডিয়ান অর্চনা নামে এক ধরনের স্কার্ট ১ হাজার দুই শত থেকে ৩ হাজার টাকা। তাছাড়া দেশিয় ছোট থ্রি-পিসের দাম সাড়ে ৬ শত টাকা থেকে সাড়ে ৫ হাজার টাকার মধ্যে। এছাড়া অনেক দোকানে সোনামনিদের জন্য পাওয়া যাচ্ছে সুন্দর ডিজাইনের সুতি শাড়ি, যেগুলোর মূল্য সাতশত টাকা থেকে দেড় হাজার টাকা।

নগরের আফমি প্লাজার শিশুদের পোশাক বিক্রয়কেন্দ্র ‘সায়মা’র বিক্রয়কর্মী সামছুল ইসলাম জানান, গাউন, লেহেঙ্গা, লং স্কার্ট, শর্ট স্কার্ট ও নানা ডিজাইনের পার্টি ফ্রক রয়েছে। শিশুদের সাধারণ ফ্রকের দাম আড়াইশত থেকে ২ হাজার টাকা, টু-পিস এবং থ্রি-পিস পাঁচশত থেকে ৩ হাজার টাকা, পার্টি ফ্রক পাঁচশত থেকে ৩ হাজার ও ওয়েস্টার্ন পোশাকের দাম পড়বে আটশত থেকে ৫ হাজার টাকা। ছেলেদের জন্য কটিসহ পাঞ্জাবি ও চুড়িদার পায়জামা এবারের ট্রেন্ড। সঙ্গে ভালোই বিক্রি হচ্ছে চেক আর ডোরাকাটা হাফহাতা শার্ট, টি-শার্ট ও ফতুয়া।

ফ্যাশন হাউস ফ্রিডমের স্বত্বাধিকারী সোহেল রানা বলেন, আবহাওয়ার কথা মাথায় রেখে শিশুদের আরামের জন্য মনোযোগ দেওয়া হয়েছে। বেশির ভাগ পোশাক সুতির। এ ছাড়া লিনেন, সিল্ক, ভয়েল, বেক্সি ভয়েল ও জর্জেটের কালেকশনও রয়েছে।

আর রাজধানীর পলওয়েল সুপার মার্কেট মূলত ভিনদেশি পোশাকের জন্য বিখ্যাত। বড়দের পাশাপাশি সেখানে ছোটদের হাল ফ্যাশনের পোশাক রয়েছে। পলওয়েল দোকান মালিক সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবিএম সালাউদ্দিন বাশার ইত্তেফাককে বলেন, ঈদকে সামনে রেখে ছোটদের পোশাকের সংগ্রহ বেশি রাখা হয়েছে। বিদেশি পোশাক আমদানির ক্ষেত্রে কোয়ালিটিকে আমরা বেশি গুরুত্ব দেই। তিনি বলেন, গ্রাহকদের সর্বোচ্চ সেবা দিতে আমরা প্রস্তুত।

সর্বশেষ খবর

খোলা হাওয়া এর আরো খবর

    আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

    Developed by