logo

বৃহস্পতিবার, ১৪ জুন ২০১৮, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৮ রমজান ১৪৩৯

শিরোনাম

মালয়েশিয়ায় ঈদ উৎসব মাতাতে যাচ্ছেন বাংলাদেশের ৬ তারকা
১৪ জুন, ২০১৮
বিনোদন ডেস্ক
ঈদের পর ৩০ জুন মালয়েশিয়ায় শুরু হতে যাচ্ছে ঈদ উৎসব । আর এ উৎসবকে ঘিরে চলছে প্রচার-প্রচারণা। কুয়ালালামপুর ও এর আশপাশের প্রদেশে বাংলাদেশি অধ্যুষিত বিপণিবিতান ও দোকানগুলোতে শোভা পাচ্ছে রং বেরংয়ের পোস্টার ও ব্যানার। এই উৎসবে অংশ নিতে কুয়ালালামপুর যাচ্ছেন বাংলাদেশের আইয়ুব বাচ্চু, ইমরান, মিলা, ফেরদৌস, পূর্ণিমা ও আবু হেনা রনি।

আয়োজক কোম্পানি এজিডি পিক্সার্চের ফেসবুক পেজে বিভিন্ন ব্যানারের পাশাপাশি ইতোমধ্যে আপলোড করা হয়েছে আইয়ুব বাচ্চুর একটি ভিডিও। যেখানে তিনি বলছেন, আসছি মালয়েশিয়ায়, দেখা হবে ৩০ জুন (শনিবার) কুয়ালালামপুরে। এক-ই ধরনের ভিডিও প্রকাশ করেছেন চিত্রনায়ক ফেরদৌস, নায়িকা পূর্ণিমা ও কমেডিয়ান আবু হেনা রনি।


এজিডি পিক্সার্চের চেয়ারম্যান দাতু সেলিম ১২ জুন মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, সম্প্রতি একটি কনসার্টকে ঘিরে ঘটা কিছু ঘটনায় মালয়েশিয়ায় আমাদের ভাবমূর্তি দারুণভাবে ক্ষুণ্ন হয়েছে। এই ভাবমূর্তি ফিরিয়ে আনতে এজিডি পিক্সার্চ কনসার্টটির আয়োজন করছে।

Malaysia-taroka

তিনি আরও বলেন, ঈদের সময় নানা জটিলতায় অনেকে-ই দেশে যেতে পারে না। বিপুল সংখ্যক এই প্রবাসীর একটু বিনোদনের সুযোগ করে দিচ্ছে এজিডি পিক্সার্চ।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, প্রবাসে দেশের ভাবমূর্তি অক্ষুণ্ন রাখার দায়ভার কিছুটা হলেও প্রবাসীদের ওপর বর্তায়। এ ছাড়া এই কনসার্টের মাধ্যমে সমগ্র মালয়েশিয়ায় একটি বার্তা পৌঁছে দিতে চাই যে, আমরা বাংলাদেশিরাও পারি একটি কোয়ালিটিপূর্ণ প্রোগ্রাম উপহার দিতে।

এতে উল্লেখ করা হয়, দর্শক মাতাতে মঞ্চে থাকবেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় ব্যান্ড এলআরবি, বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় শিল্পি ইমরান, মঞ্চ কাঁপানো শিল্পি মিলা, জনপ্রিয় অভিনেতা ফেরদৌস, অভিনেত্রী পূর্ণিমা ও কমেডিয়ান আবু হেনা রনি। থাকবেন স্থানীয় শিল্পী ইয়াসমিন আজিজ ও বাংলা গানের স্থানীয় শিল্পিদের নাচ।

এ ছাড়া অনুষ্ঠানের পরিকল্পনায় কিছু ব্যতিক্রমী চমক রয়েছে, যেগুলো দর্শক অনুষ্ঠানের দিন উপভোগ করতে পারবেন। যারা টিকিট কিনছেন তাদের বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে থাকছে লটারির মাধ্যমে আইফোন, স্যামসাংসহ ১০টি মোবাইল ফোন।

অনুষ্ঠানস্থলে বিকেল ৪টা থেকে ঢুকতে পারবেন দর্শকরা। নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় কাজ করবে স্থানীয় সিকিউরিটির সদস্যরা (রেলা)। ভিভিআইপি (বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি), ভিআইপি (গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি), গোল্ড ও সিলভার ক্যাটাগরিতে নির্দিষ্ট সংখ্যক টিকিটের ব্যবস্থা রয়েছে। পরিবার ও মেয়েদের জন্য পৃথক বসার ব্যবস্থাও রয়েছে। প্রথমবারের মতো মোবাইলে টিকিট কেনার সুযোগ রাখা হয়েছে। এতে করে যে কেউ ঘরে বসে টিকিট কিনতে পারবেন।

Malaysia-taroka

টিকিট প্রাপ্তি ও যে কোনো তথ্যের জন্য একটি হটলাইন নম্বর (+৬০১১১১৬০৬১৯৩) সার্বক্ষণিক চালু রয়েছে। টিকিট কেনার পর মোবাইলে কনফার্মেশান ম্যাসেজ যাবে।

এ ছাড়া ঢাকা থেকে যাওয়া ১৯ জন শিল্পী ও কলাকুশলীকে বিমানবন্দরে অভ্যর্থনা থেকে শুরু করে স্টেজ পারফর্ম ও বিদায় পর্যন্ত নেয়া হয়েছে সুন্দর পরিকল্পনা।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বাঙালি ও বাংলাদেশের এ সংস্কৃতি বিশ্বব্যাপী তুলে ধরার লক্ষ্যে এজিডি পিক্সার্চ কাজ করছে। এজিডি পিক্সার্চ মূলত মালয়েশিয়ায় একটি প্রোডাকশান হাউজ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার লক্ষ্যে এগোচ্ছে।

সকলের সার্বিক সহযোগিতায় এজিডি পিক্সার্চ এসডিএনবিএইচডি একটি সুন্দর, গোছালো ও জমকালো কনসার্ট উপহার দিতে চায় বলে সংবাদ সম্মলনে দাবি করা হয়।

কোম্পানির চেয়ারম্যান ছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন এজিডি পিক্সার্স এসডিএন, বিএইচডির ব্র্যান্ড ডেভলপমেন্ট ম্যানেজার মোস্তফা ইমরান রাজু, আইটি ইনচার্জ আরিফুল ইসলাম, ইক্সুকিউটিভ ম্যানেজার আশরাফুল করিম, মার্কেটিং ইনচার্জ সামিয়া আফরিন।

কো-স্পন্সরদের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন জয়যাত্রা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান হেলেনা জাহাঙ্গীর, টুফ্যাম ফ্যাশনের এমডি মিনহাজ উদ্দিন মিরান ও রেস্টুরেন্ট ফুড ভিলেজের স্বত্বাধিকারী এস কে সেন্টু, সারডাং কমিউনিটির সভাপতি আব্দুল করিম, চাঁদপুর সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ফরিদ গাজী প্রমুখ।

সর্বশেষ খবর

রুপালি সৈকত এর আরো খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by