logo

রোববার, ২৪ জানুয়ারি ২০১৬ . ১১ মাঘ ১৪২২ . ১৩ রবিউস সানি ১৪৩৭

রানীশংকৈলে শীতে বিপর্যস্ত ছিন্নমূল মানুষ
২৪ জানুয়ারি, ২০১৬

ঠাকুরগাঁও : রাণীশংকৈলে শীত জেঁকে বসেছে। নিম্ন আয়ের মানুষেরা ভিড় জমিয়েছে ফুটপাতে কাপড়ের দোকানে

রানীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও) সংবাদদাতা
ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈলে মাঘের শুরুতে শীতের তীব্রতা কম থাকলেও মাত্র কয়েকটা দিন কাটতেই প্রচ-হারে শীত জেঁকে বসেছে। প্রচ- শীতের কারণে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। বড় সমস্যার মুখোমুখি হয়েছে ছিন্নমূলের মানুষ ও শিশুরা। তীব্র শীতের মধ্যেও অসংখ্য অসহায় পরিবারের লোকজন শীতের কাপড় ছাড়াই রাত যাপন করছে। বেড়ে গেছে শীতজনিত রোগের প্রকোপ। তা ছাড়া ইরি মৌসুমের ধানের চারা শীতের প্রকোপে মরতে শুরু করেছে। এতে কৃষকের কপালে পড়েছে দুশ্চিন্তার ছাপ। 

শীতের প্রকোপ থেকে রক্ষা পেতে বিভিন্ন স্থানে আগুন জ্বালিয়ে শীত নিবারণ করার চেষ্টা করছে। শীত বস্ত্রের দাম বাড়লেও নি¤œ আয়ের মানুষেরা ফুটপাতে ভিড় জমিয়েছে শীতবস্ত্র কেনার জন্য। শীতের প্রথম ধাপে বিভিন্ন সংগঠন, ব্যবসায়ী, দানশীল ব্যক্তি, এনজিও প্রতিষ্ঠান শীতবস্ত্র বিতরণ করলেও এখন ততটা লক্ষ করা যাচ্ছে না। তা ছাড়া সরকারিভাবে যেসব কম্বল বিতরণ করা হয় তার সিংহভাগ চলে যায় রাজনৈতিক ব্যক্তি, কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ আমলা চামচাদের হাতে। প্রতি বছর দরিদ্রদের মাঝে ঠিকমতো কম্বল বিতরণ করা হলে শীতের তীব্রতার শিকার হতে হতো না তাদের।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. মাজেদুর রহমান জানান, হঠাৎ করে শীতের তীব্রতা বেড়ে গেছে। এ অবস্থা আরো কিছু দিন বিরাজ করতে পারে। এ মাসের মধ্যে কয়েকটি শৈত্যপ্রবাহ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. ফিরোজ কবির জানান, ঠা-াজনিত কারণে শিশুদের মধ্যে সর্দি-কাশি, জ্বর, নিউমোনিয়া, শ্বাসকষ্ট, গলাব্যথা, অ্যাকোনিউমোনিয়া, ফ্যারেনজাইটিস, অ্যালার্জি ইত্যাদি রোগে বেশি আক্রান্ত হচ্ছে। শীতের তীব্রতা অব্যাহত থাকলে রোগীর সংখ্যা বেড়ে যেতে পারে। এ ছাড়া শীতজনিত রোগের সাথে ডায়রিয়ার প্রকোপও দেখা দিচ্ছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খন্দকার নাহিদ হাসান জানান, হঠাৎ শীতের তীব্রতা বেড়ে গেছে। সরকারের বরাদ্দকৃত শীতবস্ত্র ইতোমধ্যে বিতরণ করা হয়েছে। আরো কিছু চাহিদা পাঠানো হয়েছে। যত দ্রুত সম্ভব দরিদ্রদের মাঝে বিতরণ করা হবে।

সর্বশেষ খবর

সারাবাংলা এর আরো খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by