logo

সোমবার, ২৫ জানুয়ারি ২০১৬ . ১২ মাঘ ১৪২২ . ১৪ রবিউস সানি ১৪৩৭

রাজনগরে ডাকবাংলোয় মাদক জুয়ার আড্ড
২৫ জানুয়ারি, ২০১৬
রাজনগর (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি
মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলায় পরিত্যক্ত সরকারী ডাকবাংলোয় মাদ, গাঁজা সেবন ও জুয়ার আসরের আড্ড চলছে। রাতের আঁধারে চলে নিশি কন্যাদের বিচরণ। স্থানীয় কতিপয় বখাটে যুবক রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় থেকে চালিয়ে যাচ্ছে এসব অপকর্ম। জেলা পরিষদের মালিকানাধীন এ ভবনের কোন সংস্কার না করা ও এর লোকবল অন্যত্র সরিয়ে নেয়ায় এতে আস্থানা গেড়েছে মাদকাসক্ত ও জুয়াড়িরা।

স্থানীয় লোকজন ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রাজনগর উপজেলার কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে রাজনগর-বালাগঞ্জ সড়কের পাশে জেলা পরিষদের মালিকানাধীন এ ডাকবাংলোটি একযুগেরও বেশি সময় থেকে পরিত্যক্ত। আগের পাবলিক লাইব্রেরির স্থানে নতুন ডাকবাংলো নির্মাণ করায় প্রাচীর ঘেরা পুরাতন এভবনটির কোন খোঁজই রাখা হয় না। লোকবলও স্থানান্তরিত হয়েছে ভিন্ন স্থানে। করা হয় না সংস্কারও। দিনদুপুরে অবাঞ্ছিত লোকজনের আনাগুনা আর রাতের আঁধারে চলে জুয়া ও নিশি কন্যাদের লিলাখেলা। এসব অপকর্মে বখাটেরা রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় থাকায় মুখ খোলেন না সাধারণ মানুষ। এতে একচ্ছত্র আধিপত্য চালিয়ে যাচ্ছে জুয়াড়ি ও মাদকাসক্তরা। মূলভবনের কয়েকটি দরজায় পুরাতন কয়েকটি তালা থাকলেও ঝুলছে নতুন তালাও। বখাটেরা নিজেদের ইচ্ছেমতো প্রবেশ করে চালিয়ে যায় অপকর্ম। গত বুধবার (২০ জানুয়ারি) দুই মাদকাসক্ত দিনের বেলায় গাঁজা করতে গেলে স্থানীয় কতিপয় যুবক দেখে ফেলে। তারা তার পিছু নিয়ে ভবনের ভিতরে যায়। বিষয়টি টের পেয়ে পালিয়ে যায় বখাটেরা। পরে তারা রাজনগর থানায় লিখিত অভিযোগ করে।

রাজনগর থানার উপ-পরিদর্শক আলাউদ্দীন ডাকবায়লো পরিদর্শনে যান।  এর আগে ভিতরে গিয়ে দেখা যায়, ভবনের পিছনের সামনের দরজায় তালা ঝুলানো রয়েছে। পিছনের একটি দরজায় নতুন তালা ঝুলানো। দরজার ফাঁক দিয়ে দেখা যায় ভিতরে বিছানার মতোকরে কাপড় পাতা। পাশে রয়েছে পানির ৩০-৩৫টি বোতল। সামনের বারান্দায় ছড়ানো-ছিটানো তাশ। অবস্থা দেখে ধারণা হয়, এই তালা খুলে ভবনের ভিতরে প্রবেশ করা হয়। সেখানেই চলে মাদক সেবন, জুয়ার আড্ড ও নিশি কন্যাদের লিলাখেলা। এসব বিষয় ওপেন সিক্রেট হলেও বখাটেরে ভয়ে প্রতিবাদ করেন না কেউ।

রাজনগর থানার উপপরিদর্শক আলাউদ্দীন বলেন, অভিযোগ পেয়ে আমি বিষয়টি দেখতে গিয়েছিলাম। সেখানে কিছু পরিত্যক্ত পানির বোতল ও তাশ পড়ে রয়েছে। মনে হচ্ছে মাদকাসক্ত বখাটেরা এখানে যাতায়াত করে।

রাজনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আইনুর আক্তার পান্না বলেন, এটি জেলা পরিষদের অধিনে। শুনেছি ওনারা সেখানে মার্কেট করবেন। বখাটেরে বিষয়টি আমি বুধবার শুনেছি।

সর্বশেষ খবর

সারাবাংলা এর আরো খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by