logo

শনিবার, ৩০ জানুয়ারি ২০১৬ . ১৭ মাঘ ১৪২২ . ১৯ রবিউস সানি ১৪৩৭

মরণোত্তর বিপিএম পদক
দীর্ঘশ্বাসই সঙ্গী সুজাউলের স্ত্রী নাসিমার!
৩০ জানুয়ারি, ২০১৬

সুজাউল ইসলাম / স্ত্রী নাসিমা আক্তার

পাবনা প্রতিনিধি
পাবনার পাকশী পুলিশ ফাঁড়িতে দায়িত্বরত অবস্থায় দুর্বৃত্তদের হাতে নিহত পুলিশের এটিএসআই সুজাউল ইসলামকে বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) মরণোত্তর প্রদান করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার সকালে কর্মদক্ষতা, সেবা ও সাহসীকতার স্বীকৃতি হিসাবে ঢাকার রাজারবাগে প্রধানমন্ত্রী দেশের বিভিন্ন স্থানের ১০২ জন পুলিশ সদস্যকে বিপিএম ও পিপিএম পদক পরিয়ে দেন। এদের মধ্যে দায়িত্ব পালনকালে নিহত সুজাউলের স্ত্রী নাসিমা আক্তারসহ ৬ জন পুলিশ সদস্যর পরিবারের সদস্যদের কাছে বিপিএম পদক প্রদান করা হয়। পদক পাওয়ার প্রাপ্তিতে আনন্দের পাশাপাশি দীর্ঘশ্বাস আর হতাশা যেন পিছু ছাড়ছে না নাসিমার। কান্নাজড়িত কণ্ঠে নাসিমার অভিযোগ, ‘আমাদের কেউ খোঁজ নেয় না, জানতে চায় না আমরা কেমন আছি। দেশের জন্য কাজ করার এই কি প্রতিদান’?

স্বামীকে হারানোর পরে সুজাউলের স্ত্রী নাসিমা আক্তার তার একমাত্র ছেলে শাহরিয়ার নাসিমকে নিয়ে শ্বশুরবাড়ী বগুড়া শহরের শেখ পাড়ায় বসবাস করছেন। আলাপকালে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী যে পদক দিয়েছেন তা আমার মৃত স্বামীর জন্য এবং আমাদের পরিবারের জন্য সম্মানজনক। আমি স্বামী হত্যার বিচার পাওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ৪ অক্টোবর রাতে জেলার ঈশ্বরদী উপজেলার পাকশী পুলিশ ফাঁড়ির এটিএসআই সুজাউল ইসলামকে দুর্বৃত্তরা শ্বাসরোধে হত্যা করে। হত্যাকা-ের পরদিন সুজাউলের লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত সুজাউল ইসলামের পরনে ইউনিফর্মের প্যান্ট, বুট পরা থাকলেও শার্ট পরা ছিল না। তার দুই হাত, দুই পা ও চোখ শক্ত দড়ি দিয়ে বাঁধা ছিল। এ ঘটনায় ঈশ্বরদী থানার সাব ইন্সপেক্টর ইসলাম হোসেন বাদী হয়ে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তদের আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর পাকশী, গাজীপুরসহ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে পুলিশ ৯ যুবককে গ্রেফতার করে।  মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও) এসআই ইসলাম হোসেন জানান, গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে রাসেল এবং জীবন নামের দুই যুবক আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়ে এই হত্যাকা-ে নিজেদের সম্পৃক্ততা স্বীকার করে। তাদের বক্তব্য অনুযায়ী সেতু, কোয়েল, মাসুম এবং আরো দুই যুবক সুজাউল হত্যাকা-ে সরাসরি অংশ নেয়। পুলিশ এখন পর্যন্ত ৯ জনকে গ্রেফতার করলেও হত্যাকা-ে সরাসরি অংশ নেয়া বাকি দুই যুবককে গ্রেফতার করতে পারেনি। হত্যাকা-ের প্রায় ৪ মাস পেরিয়ে গেলেও পুলিশ উদ্ধার করতে পারেনি নিহত এটিএসআই সুজাউল ইসলামের মোটরসাইকেল ও মোবাইল ফোনসেট।

পাবনার অতিরিক্তি পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) সিদ্দিকুর রহমান জানান, পলাতক আসামিদের ধরতে এবং নিহত সুজাউলের মোটরসাইকেলটি উদ্ধারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সর্বশেষ খবর

সারাবাংলা এর আরো খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by