logo

মঙ্গলবার, ১২ জুন ২০১৮, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৬ রমজান ১৪৩৯

ঈদে প্রস্তুত দৌলতদিয়া ঘাট
১২ জুন, ২০১৮
নিউজ ডেস্ক
ঈদ মানে আনন্দ, ঈদ মানে খুশি। আর সেই ঈদের আনন্দ পরিবারের সবার সঙ্গে ভাগাভাগি করে নিতে নাড়ির টানে বাড়ি ফিরতে শুরু করেছে মানুষ। আর এসব ঘরমুখো মানুষের বাড়তি চাপ সামলাতে প্রস্তুত রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ঘাট।

দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলের ২১ জেলার প্রবেশদ্বার দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুট। প্রতিদিন এ নৌরুট দিয়ে হাজার হাজার ছোট বড় যানবাহন নদী পার হয়। কিন্তু অন্যান্য সময়ের তুলনায় ঈদে যানবাহন ও যাত্রীর সংখ্যা বেড়ে যায় কয়েকগুন। আর সেই বাড়তি চাপ সামাল দিতে হিমশিম খান ঘাট কর্তৃপক্ষসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

ঘরমুখো যাত্রী ও যানবাহনের বাড়তি চাপ সামলাতে ইতোমধ্যে ঘাট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে প্রস্তুতিমূলক সভা করেছে জেলা প্রশাসনসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। ঘাট পরিস্থিতি স্বাভাবিক ও যানজটমুক্ত রাখতে নেয়া হয়েছে নানান পদক্ষেপ।

দৌলতদিয়ায় ঘরমুখো মানুষের যাত্রা নির্বিঘ্ন ও যানজটমুক্ত রাখতে ঈদের আগে ও পরে ৩ দিন পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার বন্ধ থাকবে। তবে পচনশীল ও জরুরী পণ্যবাহী ট্রাকগুলো পারাপার হবে। এছাড়া আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে ঘাট এলাকায় র্যাব,পুলিশ,নৌ পুলিশ, সাদা পোশাকে পুলিশ, আনসার মোতায়েন থাকবে। এছাড়া ভ্রাম্যমাণ আদালতের জন্য থাকবে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

বিআইডব্লিউটিএ দৌলতদিয়া ঘাট সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ১৭টি ফেরি চলাচল করছে এবং ঈদ উপলক্ষে বহরে যুক্ত হবে আরও ২টি ফেরি। এছাড়া ৪টি ঘাট দিয়ে ফেরি ওঠানামা করছে এবং নতুন ২টি ঘাট প্রস্তুত করা হচ্ছে।

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট সূত্রে জানা গেছে, ঈদ উপলক্ষে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে ১৯টি এবং দৌলতদিয়া-আরিচা রুটে ৩টি লঞ্চ চলাচল করবে।

বিআইডব্লিউটিএ উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. শাহ আলম জানান, ঈদে ঘরমুখো মানুষের কথা চিন্তা করে ৪টি ফেরি ঘাটের পাশাপাশি আরো নতুন ২টি ঘাট প্রস্তুত করা হয়েছে। এখন দৌলতদিয়া প্রান্তে মোট ৬টি ফেরি ঘাট। নতুন ঘাট (২ ও ৬) দুটিতে এখন ফেরি ভিড়তে পারবে।

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট সহকারী ব্যাবস্থাপক (বাণিজ্য) মো. রুহুল আমিন জানান, বর্তমানে ঘাট পরিস্থিতি যেমন আছে এরকম থাকলে ঈদে ঘরমুখো মানুষের কোনো ভোগান্তিই হবে না।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি মীর্জা আবুল কালাম আজাদ জানান, ঈদ উপলেক্ষে দৌলতদিয়া ঘাট পরিস্থিতি স্বাভাবিক ও যাত্রীরা যেন নিরাপদে তাদের গন্তব্যে পৌঁছাতে পারে সেজন্য ঈদের ৩ দিন আগে থেকে ঘাট এলাকার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে পুলিশ মোতায়েন করা হবে।

দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কের ফেরিঘাট থেকে গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন স্কেল পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা দ্বায়িত্ব পালন করবে। এছাড়া ঈদ শেষে মানুষ কর্মক্ষেত্রে ফিরে যাওয়ার সময় তাদের নিরাপত্তা দিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকবে।

সর্বশেষ খবর

সারাবাংলা এর আরো খবর

আজকের পত্রিকা. কমের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ নিষেধ

Developed by